দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অক্ষশক্তিকে জিতিয়ে দেয়া বই ‘দ্য ম্যান ইন দ্য হাই ক্যাসল’

ফিলিপ কে ডিকের অল্টারনেটিভ হিস্ট্রি জনরার উপন্যাস ‘দ্য ম্যান ইন দ্য হাই ক্যাসল’। ২৯০ পৃষ্টার মতো পেপারব্যাক, খালেদ নকীবের অনুবাদ। উনার অনুবাদ ভালো, সেটা জুলর্ভানের একটা ঢাউস কিতাব থেকে অনুমান করছি। এবারেরটা পড়তে খানিকটা বেশি সময় লাগছে। নানান কিছু ফাঁকে ফাঁকে একটু একটু পড়ছি। এ কারণে অনেককিছু বোঝা যায় নাই। আবার খেয়াল করলাম, যেটা বুঝি…

মাসরুরের ‘আড়িয়াল খাঁ’ ঘুরে দেখার পর

কিছুদিন আগে মঈনুল আহসান সাবেরের ‘আমাদের খঞ্জনপুর’ পড়ে মুগ্ধ হইছিলাম। সঙ্গে এটাও ভাবছিলাম, এই সময়ে এসে এমন একটা উপন্যাস যদি কেউ লেখে, অসম্ভব ও সেকেলে ঠেকবে। স্থান-কালের সম্পর্করে ভূত-ভবিষ্যত দিয়ে যেভাবে ভাবি আমরা। তাই কেউ উল্টোটা দেখলেও; ‘আড়িয়াল খাঁ’, মাসরুর আরেফিনের উপন্যাসটা পড়ে দু-একবার এটা মনে হইছিল। রেফারেন্স হিসেবে নিকট অতীতই ভালো, মানে সাবেরের উপন্যাস।…

পূর্ণাঙ্গ অনুবাদে ‘টুয়েন্টি থাউজেন্ড লিগস আন্ডার দ্য সি’, এ ভীষণ চমক

জুলভার্নের বই প্রথম পড়ছিলাম ক্লাস এইটে থাকতে। নাকি নাইনে? তখন যা হইতো যেখানে যাইতাম, গল্পের বই আছে কিনা খুঁজতাম। এক কাকার বাসায়, মূলত সিনেমার ম্যাগাজিন, পত্রিকা এই সব থাকতো। একদিন অনেক কাগজপত্রের মধ্যে সেলাই খোলা একটা বই পেলাম। প্রচ্ছদ, সম্ভবত দুই-তিনটা পৃষ্ঠা ছিল না। তবে প্রতি পেজের নিচে নাম দেখে বুঝলাম ‘রহস্যের দ্বীপ’ (ইংরেজি টাইটেল…

বিচ্ছিন্ন হৃদয় কোথায় থামে?

আমাদের ভেতরকার শূন্যতা, যা নিয়ে আমরা ভাবি এবং ক্রমশ গ্রাস থাকি। তার অন্তর্গত সত্য উন্মোচন না হলেও আমাদের মুক্তি কোথায়? ভেতরকার ও অন্তর্গত এ ধরনের শব্দের মাধ্যমে বৃত্তের মাঝে আরও বৃত্ত, অদেখার মাঝে আরও অদেখার তালাশ আছে। আমাদের মুক্তি কি বাসনার মাঝেই সীমাবদ্ধ থাকে? এ ভাবনা কারণ কী হতে পারে! মানুষের বোঝাপড়ার ভেতর এমন কিছু…

অন্যমনস্কতার দায়

করোনার বাড়াবাড়ি, আচানক থমকে গেল সবকিছু। শুধু মানুষের বয়স বাড়ছিল যেন। লকডাউনের শুরুর দিকে একটা শ্রেণীর মাঝে অবসর, উদযাপন বা পিকনিক পিকনিক ভাব চলে আসে। কেউ কেউ ফূর্তির মেজাজে বলছিলেন, নিত্য রুটিনের চাপে ফিকে হওয়া ‘নিজেকে’ ফিরে পেলাম। একটু অবসর না পাওয়ায় হা-পিত্যেশ তো আমরা প্রায়ই করি! মুশকিল হলো, মানুষ নিজেকে যা মনে করে, তা…

বাঙলার মুসলমানের স্বরাজ বাসনা

এমন কথা প্রচলিত আছে, পলাশি যুদ্ধে যখন নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা হারছিলেন, তখন পাশের জমিতে কৃষকেরা নিরুদ্বেগ চাষাবাদে ব্যস্ত ছিলেন। এমনও বলা হয়, যখন ইংরেজ বাহিনী মুর্শিদাবাদে বিজয়ীর বেশে প্রবেশ করে, শহরবাসী একটা করে ঢিল ছুড়লেও তারা পালাতে বাধ্য হতো। সাধারণত এই সব কথাকে যেভাবে মূল্যায়ন আকারে ধরা হয়- সে দিকে না-ই যাই। বরং এ কথা স্মরণ…