সুপার হিরোর ধর্মভাব

দুনিয়ার সব প্রান্তে নামে-বেনামে শুভ-অশুভ বা উচিত-অনুচিতের দ্বন্ধ মোটাদাগে হাজির। আমরা প্রায়শ অশুভকে শুভের অধীনস্থ না দেখিয়ে বিপরীত হিসেবে দেখি । এ যেন  সেয়ানে সেয়ানে লড়াই। এই লড়াইয়ের সাথে সিনেমায় অশুভশক্তির সাথে সুপারহিরোর  লড়াইয়ের মিল পাওয়া যায়। যেখানে ধর্ম, বিজ্ঞান আর মিথের মিশেল দেখা যায়। এর প্রাথমিক স্বাক্ষী সুপারহিরোর জনক কমিকস বইগুলো।এরপর আছে হলিউড-বলিউডের দুনিয়া…

অস্তিত্ব এবঙ পরম-সত্ত্বা, ঈশ্বর, জ্ঞান ও বিশ্বাস নিয়ে মন্তব্য

এই ভূ¬জগতে অস্তিত্ত্ব নিজেই নিজেরে জানান দেয়। এটাই অস্তিত্ত্বের মর্ম। এটা তার গুণ নয়। কিন্তু গোলমেলে বিষয় হলো, অস্তিত্ত্ব সবসময় কোন কিছুর সাপেক্ষে হয়। নানা কিছুর উপর ভর দিয়ে থাকে। আবার অনেক কিছু তার উপর ভর দিয়ে থাকে। সেটা সময়ের ধারণার মধ্যেই এবঙ পুরো বিষয়টার একটা নৈব্যক্তিক চলন আছে। এর ফলে কখনো কখনো অস্তিত্বের নিজের…

নৈতিকতা ধর্মকে আড়াল করে

অলিম্পিক খেলার জন্য অলিম্পাস পর্বতরে চেনা-জানার দরকার নাই। সেই পর্বতখানি না চিনিয়া না জানিয়া আপনি ডিগবাজি দিয়া আসিতে পারেন। কারণ ডিগবাজির সাথেই আজকের অলিম্পিকের কায়-কারবার। এর সাথে অলিম্পাস পর্বতের যোগাযোগ অতি ক্ষীণ। সুতারাঙ, অলিম্পাস কি বস্তু ইহা না চিনিলেও কারো দোষ দেয়ার নাই। আলাপটা নৈতিকতার সাথে ধর্মের সম্পর্ক নিয়ে। বিষয়টা মোটাদাগে নয়। এই শিরোনাম না…

ঝড়ে বক না’ও মরিতে পারে

পাঠিকাগণ ইহাকে নীতি কথনমূলক পোষ্ট মনে করিলে নিতান্তই ভুল করিবেন। বিলক্ষণ ট্রাজেডী, ইহা শেষ পর্যন্ত নীতি কথনে পর্যবসিত হইতে পারে। ভবিষ্যত তো খালি চোখে দেখন যায় না। ডেলফির মন্দিরে ভবিষ্যত দেখিতে কিঞ্চিৎ ধোঁয়ার প্রয়োজন পড়িত- সেই যুগ কবেই বিগত-যৌবনা। তারপরও ক্ষণে ক্ষণে ভ্রম হয়। দুনিয়ার নিয়ম এই, অস্থির চিত্তের লোকেরা দুনিয়ারে আপন আপন বালখিল্যতা, লাভ-লোকসানের…