ইচ্ছের রূপান্তর

ইচ্ছেশূন্য মানুষেরা হয়ত বা ইচ্ছের কিছু অর্থ তৈরী করে, নয়ত পরম শূন্যতায় অথবা শূন্যতা তাদের তাড়িয়ে নিয়ে যায় দূর কোন সমুদ্দুরে- তারা নিরন্তর সাতার কাটে। যুগপৎ প্রতিকূল-অনুকূল স্রোতে কিছু ইচ্ছে টিকে থাকে আর কিছু হারিয়ে যায় নিকষ সমুদ্দুরে।

ইচ্ছেশূন্যতার কোন অর্থ হয় না। মানুষ নিজেই ইচ্ছের রূপান্তর। তার বাসনাগুলো নানারূপে অধরাকে ধরে, অনুধাবন করে। একই সাথে সে নিজেকে ছাড়িয়ে যেতে চায়। এই চাওয়া-না চাওয়ার কি ঘটে সেটা কথা নয়। কথা হলো, তাকে চাইতে হয় আবার চাওয়াটাকে অস্বীকার করতে হয়। এই স্বীকার-অস্বীকারের দ্বন্ধে যেটুকু আশা বেঁচে থাকে তাকে বলি, এই তো আছি। এই বেঁচে থাকাটাই আনন্দের।

অন্য অর্থে ইচ্ছের গুণগান গাওয়া যায়। আল্লাহ ‘কুন’ বলা থেকে জগতসংসারের উৎপত্তি। তার ইচ্ছে কাজে পরিণত হলো। মানুষ তার যাওয়াটাকে অর্থময় করে তুলতে পারে- তার ইচ্ছেকে আল্লাহর এ সিফাতের চর্চা হিসেবে কবুল করে। কিন্তু তেমন ইচ্ছে তো সাধনার বিষয়। তা কয়জনের মিলে। সে অর্থে, একটা আইডিয়াল অর্থে- ইচ্ছে আসলে বৃহত্তর জিনিস। তাই তুচ্ছ (রূপকার্থে, কিছুই তুচ্ছ নয়) ইচ্ছেগুলো কোন ইচ্ছেই না। তাই সে চর্চার আগমুহূর্ত পর্যন্ত একে আমি মূল্যায়ন করতে পারি না। বরং শূন্য হয়ে বসে থাকি।

………………………………………………………………………………………………………………….

ওয়াহিদ সুজন-wahed sujan

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগ থেকে অনার্স ও মাস্টার্স  এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধীনে এমফিল সম্পন্ন করেছি। থিসিসের বিষয়- ধর্মীয় জ্ঞানের নিশ্চিতি: জ্ঞানের সনাতনী সংজ্ঞার প্রেক্ষিতে বিশ্লেষণ।

ধর্ম, দশর্ন, রাজনীতি ও সংস্কৃতি নিয়ে আগ্রহী। ভালো লাগে বই পড়তে, মুভি দেখতে, আড্ডা দিতে, গান শুনতে এবং  গাড়িতে চড়তে। সবচেয়ে ভালো লাগে চুপচাপ বসে থাকতে অথবা  ঘাসের গালিচায় শুয়ে  বা তারার  আলোয় আকাশের দিকে  তাকিয়ে থাকতে। লক্ষ্য বস্তুর পেছনের হকিকত বুঝা এবং আনন্দের সাথে বেঁচে থাকা।

সামহোয়ার ইন ব্লগে লেখালেখি শুরু করি ২০০৯ সালে। নিজের লেখাগুলোকে গুছিয়ে রাখতেই ব্যক্তিগত সাইটের প্রচেষ্টা, এক অর্থে ছেলেমানুষী প্রচেষ্টা। এর সবকিছুই দারুন উপভোগ করি। প্রকাশিত বই : উকিল মুন্সীর চিহ্ন ধরে (ঐতিহ্য/মে ২০১৫)।

ইমেল : [email protected]
ফেসবুক : https://www.facebook.com/wahed.sujan

……………………………………………………………………………………………………..

ফেসবুক কমেন্ট:

  • Nazmussakib Nirjhor মানুষ ইচ্ছেশূন্য হয় কিভাবে? যদি সে “ইচ্ছেশূন্যতা”র উপর টিকে থাকতে চায় তাহলেও তো তাকে একটা দৃঢ় ইচ্ছাপোষন করতে হবে। নাকি সে ইচ্ছা ছাড়াই, স্বতঃই ইচ্ছাশূন্যভাবে দিন গুজরান করে যায়?
  • Wahed Sujan নির্ঝর ঠিক বলেছো। এই অর্থে এটা ফ্যান্টাসী- যেখানে সীমাহীন বাসনার তোরে মানুষ ভেসে যায়। সেখানে ইচ্ছেশূন্যতার কোন অর্থ হয় না (আমার আগের মন্তব্য দ্রষ্টব্য)। ইচ্ছেশূন্যতা তার প্রতি চ্যালেঞ্জ। সেটা কোন তরিকায় সম্ভব- আলাদা বিষয়।

    ইচ্ছে কোত্থেকে আসে। পরমের কাছ থেকে। তিনি তো সব ইচ্ছে করেন- হও বললে হয়ে যায় । তার রূপ কেমন জানি না। কিন্তু আমি সবকিছুর জন্য তার মুখাপেক্ষী। আমার ইচ্ছেশূন্যতা মানে তার ‘হও’ বলার মধ্যে নিজেকে চুড়ান্তভাবে সমর্পন করা। এরপর ইচ্ছে বলে কোন বোধ থাকে কিনা জানি না।.. একটা নাম তো দিলাম।

    আরও বলা আছে….। আপাতত ক্ষ্যান্ত দিলাম। ভালো থেকো।

Comments

comments

19 thoughts on “ইচ্ছের রূপান্তর

  1. আপনার লেখা আমার খুব ভাল লাগল – আমারা একটা ওয়েবযিন শুরু করার চেষ্টা করছি। আপনি যদি আপনার কিছু লেখা দেন তাহলে দারুণ হয়। শুভেচ্ছা রইল। http://www.sydneyprobashi.wordpress.com

  2. আপনার ব্লগটি দেখলাম ভালো লাগলো 🙂 । আমার একটি প্রশ্ন আছে, আচ্ছা এই ব্লগটি কি “ওয়ার্ডপ্রেস.com” দিয়ে বানানো না? তাদের থেকেই কি তাহলে ডোমেইন নিয়ে নিছেন? কতো টাকা দিতে হয়েছে?

    • জ্বি, ওয়ার্ডপ্রেস.কম দিয়ে বানানো।
      ডোমেন ও হোস্টিং বাবদ এক বছরের জন্য ১৮ ডলার।

      আপনার ভালো লেগেছে জেনে খুশি হলাম।

  3. সুজন ভাই,
    আমাদের ওয়েবযিনে সব রকমের লেখাই আমরা নিতে প্রস্তুত। আপনার আগের লেখা থেকে মাঝে মাঝে কিছু পাঠালেই আমারা তা ছাপাতে পারব। কয়েকজন ভাল বাংলা ব্লগার সাথে থাকলে এটা দার করাতে পারব। আপনার মিরা নায়ারের উপর লেখা খুব ভাল লেগেছিল, বাংলাদেশে তোলা আর একটা ছবি আমার খুব প্রিয় – মনের মানুষ – আপনার লেখা সিনেমার উপর ব্লগ / ভ্রমণ কথা / গল্প সবি চলতে পারে। আপনার ইমেল ঠিকানা আমায় দিন জাতে আপনাকে ওয়রদপ্রেসের মাধ্যমে একটা আমন্ত্রণ জানাতে পারি। সূর্য

    • ধন্যবাদ। আপনার ওয়েবযিনের জন্য কোন লেখা পছন্দ হলে জানাইয়েন। আমি আবার এডিট করার চেষ্টা করব।

      আরেকটা বিষয়… আপনার ব্যক্তিগত ব্লগ হলে আমার অপত্তি ছিলো না। প্রবাসীতে দেখা যাচ্ছে দুর্গাপুজা আর একমাস বাকি। কিন্তু এটা তো (অনুমান) শুধুমাত্র নির্দিষ্ট ধর্ম বা বর্ণ কেন্দ্রিক নয়। সেদিক থেকে প্রমোট করলে সবাইকে করলে ভালো। শুভ কামনা।

  4. সুজন ভাই, এটা ভালই বলেছেন, অতটা ভেবেও দেখিনি – কিন্তু এখন চিন্তা করলাম। আমাদের এই আসসিয়েসন থেকে ৪টে অনুষ্ঠান করা হয় – তার মধ্যে দুর্গ পুজো, সরস্বতী পুজো, রবীন্দ্র জয়ন্তী এবং নাট্য উৎসব – তাই ওই তারিখটা দেওয়া – যাতে আসসিয়েসনের সদস্যরা জানতে পারেন কবে হচ্ছে। আশা করি এতে কেউ অন্যরকম ভাববেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *