জার্মান দার্শনিক হাইডেগারের ‘আছে’র আছে হয়ে থাকা

পাঠক! আমি আছি, আপনিও আছে’ন। কিন্তু আমি কি আসলেই আছি? ‘আছি’ মানে ‘আছে’ হয়ে থাকা মানে কি? আমি কি করে ‘আছি’? এই চিন্তা নিশ্চয় শুধু আমার নয়, বরং আমরা- এই জমানার মানুষেরা দর্শনের জায়গা থেকে এই চিন্তা করে আসছে অনেকদিন ধরে। এই জমানার বলতে কী বুঝব? একসময় ধরে নেওয়া হোত যে ‘আছে’ বা ‘আছি’ ব্যাপারটা…

যমজ পৃথিবীর সবকিছু কি পৃথিবীর মতো হুবহু একই!

সর্বশেষ পড়া উপন্যাসটি ছিলো ইয়েন্তন গার্ডার’র (Jostein Gaarder) ‘শুনছ, কোথাও আছো কি কেউ?’ (Hello! Is Anybody There?, বাংলা তর্জমা: দ্বিজেন্দ্রনাথ বর্মন, সন্দেশ, ঢাকা)। কাকতালীয়ভাবে এই সময় মাথার মধ্যে ঘুরছিল যমজ পৃথিবীর ধারণা। এই উপন্যাস ইয়েন্তন গার্ডারের অন্যান্য উপন্যাসের মতোই উত্তম পুরুষে লেখা। উপন্যাসের মূল চরিত্র জো, ছোট্ট ভাইয়ের জম্মের দিন মিকা নামক ভিনগ্রহবাসীর মুখোমুখি হয়।…

মানসিক অবস্থা কি করে বাইরের দুনিয়াকে উপস্থাপন করে?

‘আমরা যে ভাব-ভাষা আর অভিজ্ঞতার জগতে বাস করি সেটা কি আসলেই আছে? নাকি এটি নির্মিত, আমাদের অজ্ঞাতাসারে কেউ কল-কাঠি নাড়াচ্ছে। আমরা যেভাবে চিন্তা করি, সেই চিন্তার কি কোন স্বাধীন অস্তিত্ব আছে? নাকি আমরা কৃত্রিম কোন অভিজ্ঞতার শিকার হই? যেখানে আমরা নিছক খেলার পুতুল বা পরীক্ষাগারে পরীক্ষণযোগ্য বস্তু মাত্র, কৃত্রিম পরিবেশে কিছু শর্তের মাঝে জীবন-যাপন করতে…

ধর্ম ও দর্শন: শত্রু শত্রু খেলা

এটা মূলত: কোন এক ব্লগারের পোষ্টে দেয়া মন্তব্য। ধর্মপ্রাণ সেই ব্লগার ধর্মের সাথে বিজ্ঞানের কোন বিরোধ দেখেন না, কিন্তু দর্শন কোন মতেই ধর্মসম্মত নয়। যদিও এটা প্রতিক্রিয়ামূলক লেখা। তাই পূর্ণাঙ্গ আলোচনা হয়ে উঠে আসেস নাই। কিন্তু এতো দীর্ঘ লেখা লিখে নিজের ব্লগে শেয়ার করব না, ভাবতেই কেমন লাগে। সেই মন্তব্যটি কিছুটা সম্পাদনা করে এখানে তুলে…

আমার ভাব-ভাষা কি আসলেই আমার

আমরা যে ভাব-ভাষা আর অভিজ্ঞতার জগতে বাস করি সেটা কি আসলেই আছে? নাকি এটি নির্মিত, আমাদের অজ্ঞাতাসারে কেউ কল-কাঠি নাড়াচ্ছে। আমরা যেভাবে চিন্তা করি, সেই চিন্তার কি কোন স্বাধীন অস্তিত্ব আছে? নাকি আমরা কৃত্রিম কোন অভিজ্ঞতার শিকার হই? যেখানে আমরা নিছক খেলার পুতুল বা পরীক্ষাগারে পরীক্ষণযোগ্য বস্তু মাত্র, কৃত্রিম পরিবেশে কিছু শর্তের মাঝে জীবন-যাপন করতে…

এথিক্স আর মেটা-এথিক্সে বন্দী জীবন

বছরখানেক আগের কথা, মেটা-এথিক্স বা পরা-নীতিবিদ্যার কাঠ-খোট্টা একটা বই পড়ছিলাম। মানে আমার কাছে কাঠ-খোট্টা। একটা পোষ্ট লিখেছিলাম সামুতে। এটা সেই পোষ্টেরই সামান্য পরিবর্ধিত অংশ। তো, মোটের উপর একখানা বই। তার উপর নির্বাচিত চ্যাপ্টার। এথিক্সে বা নীতিবিদ্যার প্রতি এক সময় ব্যাপক আগ্রহ ছিলো। একই সাথে এথিক বুঝার জন্য গুরু ও গুরুপনার দরকার ভেবেছিলাম। কিন্তু সবকিছুর জন্য…